home top banner

স্বাস্থ্য টিপ

শুকনো ফাটা পা, কিভাবে তা সারাবেন
২৮ অক্টোবর, ১৩
Tagged In:  cracked feet care  
  Viewed#:   3799

শীত শুরু হতে যাচ্ছে এবং আমাদের অনেকেরই পা শুকনো, ফাটা, খসখসে হয়ে যাবে ফলে পা কেউ দেখে ফেললে বেশ বিব্রতকর অবস্থায় পরতে হবে। যেকোনো বড় দোকানে আপনি ডজনে ডজনে এমন সামগ্রী পাবেন যেগুলি আপনার গোড়ালিকে সুস্থ্য রাখার প্রতিশ্রুতি দিবে। কিন্তু কিভাবে আপনি জানবেন কোনটি কাজ করবে? কেন আপনার পা এমনটি করে?

আপনার পায়ে স্বাভাবিক ভাবে তেল উৎপন্ন হয় না, এগুলোর আর্দ্র হয়ে নরম হওয়ার জন্য ঘর্ম গ্রন্থির উপর নির্ভর করতে হয়। বেশ কিছু বিষয় আছে যা আপনার শরীরকে নিজে থেকেই এটি করে দিতে পারে, এর মধ্যে আছে ডায়াবেটিস, থাইরয়েডের সমস্যা, কোন তীব্র অসুস্থতা যা আপনার ত্বককে আক্রান্ত করেছে, edema, এবং বয়োবৃদ্ধি। এটি আরও যে সব কারণে হতে পারে তার মধ্যে আছে ব্যাকটেরিয়া, ভিটামিনের ঘাটতি, পানিতে অধিক সময় ভিজে থাকা, যথাযথভাবে পায়ে লাগছে না এমন জুতা, এবং পায়ের চারপাশে বাতাস চলাচল করতে পারছে না এমন অবস্থা।
 
এ সমস্যার কিছু গৃহ চিকিৎসা আছে যা চেষ্টা করা যেতে পারে, এবং কিছু সাধারণ জ্ঞানের বিষয় প্রয়োগ করা যেতে পারে। আপনার পা আর্দ্র রাখার লোশনের তালিকা করলে এর প্রথমেই থাকবে পানি, তবে এটি আপনার সমস্যার সমাধান করবে না। পানি শুকিয়ে যেয়ে আবার পুর্বাবস্থায় ফিরিয়ে নিবে। সম্ভবত বর্তমানে আপনার ফ্রিজে বা রান্নাঘরের কাপবোর্ডে আছে এমন কিছু জিনিষ আপনার পা কে মসৃণ করতে পারে।
 
·         ২ গ্যালন হালকা গরম পানিতে ১ কাপ সাদা ভিনেগার মেশান, সপ্তাহে একবার ৩০ থেকে ৪৫ মিনিট  সময় ধরে এতে পা চুবিয়ে রাখুন, হালকা ভাবে ঘষুন, ময়েশ্চারাইজার মাখুন এবং মোজা পরে নিন।
·         ১ গ্যালন হালকা গরম পানিতে ½ কাপ বেকিং সোডা মেশান, গলে যাওয়া পর্যন্ত নাড়তে থাকুন, ৩০ থেকে ৪৫ মিনিট এতে পা চুবিয়ে রাখুন, হালকা ভাবে ঘষুন, ময়েশ্চারাইজার মাখুন এবং মোজা পরে নিন।
·         ১-২ গ্যালন হালকা গরম পানিতে কয়েক ফোঁটা চা গাছের তেল মেশান, এতে পা চুবিয়ে রাখুন, হালকা ভাবে ঘষুন, শুকিয়ে নিন, ময়েশ্চারাইজার মাখুন, মোজা পরুন। ব্যাকটেরিয়া বা ফাঙ্গাসের কারণে পায়ের উপরোক্ত সমস্যা হলে এ পদ্ধতিটি বেশ ভাল কাজ করবে।
·         ১-২ গ্যালন হালকা গরম পানিতে ২-৩ টেবিল চামচ লেবুর রস মেশান, এতে পা চুবিয়ে রাখুন, হালকা ভাবে ঘষুন, শুকিয়ে নিন।
 
লোশনের পরিবর্তে অলিভ অয়েল, নারিকেল তেল, ভ্যাসেলিন অথবা যে কোনও রান্নার তেল ব্যবহার করতে পারেন। যদি আপনি পছন্দ করেন তবে একটি ভাল সুগন্ধের জন্য এক বা দুই ফোঁটা এসেন্সিয়াল অয়েল মেশাতে পারেন। আপনি এসেন্সিয়াল অয়েল মেশাবেন, সুগন্ধি তেল নয় কারণ বেশীর ভাগ সুগন্ধি তেলে একটি আঠালো ভাব আছে যা ত্বকে মাখার জন্য নিরাপদ নয়। একটি ভাল মিশ্রণ হল এক টেবিল চামচ অলিভ অয়েলের সাথে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস। এটি ভাল ভাবে মিশিয়ে নিন এবং ভাল ভাবে মালিশ করুন। ব্যবহারের পরে পরিস্কার সুতির মোজা পরুন। সুতির মোজা  বাতাস চলাচলে সহায়ক হওয়ার ফলে আপনার পায়ের আর্দ্রতা বজায় থাকবে।
 
একটি কোমল এবং মসৃণ পা এবং স্বাচ্ছন্দ্যময় গ্রীষ্মকালীন জুতা উপভোগ করুন!

Please Login to comment and favorite this Health Tip
Next Health Tips: ১০ টি প্রধান প্রদাহ নাশক ভেষজ উদ্ভিদ
Previous Health Tips: বেশীর ভাগ ডায়েট প্ল্যান ৭ দিনের মধ্যেই ব্যর্থ হওয়ার ৫ টি কারণ

আরও স্বাস্থ্য টিপ

আপনার ঝিমুনি আসার কারণগুলো কী?

আপনার ঝিমুনি আসার কারণগুলো কী?আপনি কী প্রায়ই অলস, ক্লান্ত বা শক্তি কম অনুভব করেন? কেন এমন অনুভব হয়? আপনার এমন অনুভূতির কারণ হতে পারে স্ট্রেস, একঘেয়েমি, সুষম খাদ্যের অভাব বা  ইনসমনিয়া। সাধারণত রাতের ভালো ঘুমই এর প্রতিকার। কিন্তু কিছু ক্ষেত্রে ঝিমুনি আসার  কারণ হতে পারে মারাত্মক কোন... আরও দেখুন

গর্ভাবস্থায় শিশুর নড়াচড়ার বিষয়ে জানুন

প্রতিটা হবু মা তাঁর গর্ভের সন্তানের অস্তিত্বের অনুভূতি টের পান যখন গর্ভস্থ শিশু পা ছোঁড়াছুড়ি করে। শিশুর এই নড়াচড়াই তাঁর বৃদ্ধি ঠিক মত হচ্ছে এটার ইঙ্গিত বহন করে। যদিও শিশু মায়ের গর্ভে থাকাকালীন নড়াচড়া এবং  লাথি মারা ছাড়াও অন্যান্য কাজও করে থাকে যেমন – ঘুমানো, খেলা করা, হামি দেয়া,... আরও দেখুন

মধু-দারুচিনির মিশ্রনের উপকারিতা জানেন তো?

আমাদের দৈনিক জীবনের গুরুত্বপূর্ণ দুটি উপাদান হলো মধু এবং দারুচিনি। রান্নার মশলা হিসেবে দারুচিনি বেশ পরিচিত। আর মধুও আপন গুণে গুণান্বিত। ওষধ হিসেবে এই দুটি প্রাচীনকাল থেকে ব্যবহার হয়ে আসছে। কোলেস্টোরল বাড়ছে নিয়ন্ত্রণহীন ভাবে? কিংবা বাতের ব্যথায় কষ্ট পাচ্ছেন? এই সব সমস্যার সমাধান পাবেন... আরও দেখুন

রোজকার যে অভ্যাসগুলো আপনার হাঁটু ব্যথা বাড়িয়েই চলেছে!

দিনের পর দিন আপনার হাটুর ব্যথা কি বেড়েই যাচ্ছে? এর পেছনে অনেক কারণ থাকতে পারে কিন্তু বেশ কিছু সাধারণ কারণ নিয়ে আজ আমরা কথা বলবো। এগুলোর মধ্যে কোন একটা যদি আপনি করে থাকেন,তবে সময় এসেছে সেসব বন্ধ করার। চলুন জেনে আসা যাক কারণগুলো- ভারী ব্যাগ বহন করা ব্রিটিশ কায়রোপ্র্যাকটিক এসোসিয়েশনের মতে,... আরও দেখুন

খাওয়ার পরিমাণ কমান ৮টি কৌশলে

অনেক দিন ধরে ভাবছেন ডায়েট শুরু করবেন, কিন্তু পারছেন না। আবার নানান ঝামেলা করে শুরু করলেন ডায়েট। কিন্তু খাবার দেখলে ভুলে যাচ্ছেন ডায়েটের কথা। যারা খেতে পছন্দ করে, তাদের জন্য খাবার কম খাওয়াটা বেশ কষ্টকর। এধরনের মানুষের খাবারের প্রতি একধরনের আসক্তি কাজ করে। যার কারণে খাবার খাওয়া ছাড়তে পারে না... আরও দেখুন

হৃদরোগের ঝুঁকি কমানোর সবচেয়ে ভালো একটি উপায়

আপনি কী দীর্ঘ সময় বসে কাটান? তাহলে আপনার সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। কারণ দীর্ঘক্ষণ বসে কাটালে কার্ডিওভাস্কুলার ডিজিজ হওয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। গবেষকদের মতে প্রতি আধা ঘন্টা পর পর ২ মিনিটের জন্য হেঁটে আসলে ফ্যাটি এসিডের মাত্রা কমে। ফ্যাটি এসিড ধমনীতে বাঁধার সৃষ্টি করে।   গবেষণায় জানা গেছে... আরও দেখুন

healthprior21 (one stop 'Portal Hospital')