home top banner

স্বাস্থ্য টিপ

একদম রোগা আপনি? তাহলে জেনে নিন ওজন "বৃদ্ধি" করার ৬টি উপায়
০৮ জুন, ১৪
Tagged In:  weight gain  reduce weight  
  Viewed#:   215199   Favorites#:   2

weight-increaseআমরা সবাই ওজন কমানোর জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়ি। কিন্তু কখনও খেয়ালও থাকে না যে এই পৃথিবীতে এমনও কিছু মানুষ আছে যারা ওজন বাড়ানোর জন্য খুব আগ্রহ প্রকাশ করে থাকেন। অনেকেই আছেন যাদের একটুখানি খেলেও যেন ওজন বাড়ে। আবার এমন অনেকেই আছেন যারা শতগুণ খেলেও তাদের ওজনের খুব একটা হেরফের হয় না, রোগা-পটকাই থেকে যান। আন্ডার-ওয়েট শরীর হলে অবশ্য চেষ্টা ভালো লাগে না, চেহারা ভেঙে যায়। মেয়েদের শরীর যেমন এতে ঠিকভাবে বেড়ে ওঠে না, তেমনই ছেলেদের দেখতেও ভীষণ বাজে লাগে।


এমতাবস্থায় ওজন বাড়ানোর জন্য বেশি কিছু নয় শুধু নিয়ম করে কিছু খাওয়া প্রয়োজন যেন খাবারটি আপনার শরীরে ঠিকমত লাগে। আসুন জেনে নিই এমন ৬ টি উপায়।

১. স্বাস্থ্যকর খাবার খান :
আপনি হয়ত প্রচুর পরিমাণে খাচ্ছেন তারপরও আপনার স্বাস্থ্য ঠিকমত বাড়ছে না। তার কারণ হল আপনি খাচ্ছেন, কিন্তু ঠিক নিয়ম করে সঠিক খাবারটি খাচ্ছেন না। খালি পেট ভরে এটা সেটা খেলেই হবে না। খেটে হবে উপযুক্ত খাবারটি। আপনার শরীরে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণে প্রোটিন, কার্বন এবং ফ্যাট এর প্রয়োজন হয় প্রতিদিন। এর জন্য প্রতিদিন বাদাম এবং দুগ্ধজাত খাবার খান। প্রোটিনযুক্ত খাবার পেশী গঠনে সহায়তা করে। এটি শরীরের ওজন বৃদ্ধি করে থাকে। তাই প্রতিদিন নির্দিষ্ট পরিমাণে মাংস গ্রহণ করুন। রোজ খান ডিম, পনির ও পর্যাপ্ত পরিমাণে ভাত-রুটি-আলু। ওজন বাড়াতে চাইলে বসা ভাত খেলেই উপকার পাবেন। কেননা এটা থাকে প্রচুর ক্যালোরি। মিষ্টি খান রোজ।

২. বেশি পরিমাণে তরল জাতীয় খাবার গ্রহণ করুন :
একটু পর পর তরল জাতীয় খাবারে ক্ষুধা দ্রুত তৈরি করে। এজন্য আপনি ক্ষুধা তৈরি করার জন্য একটু পর পর তরল জাতীয় যেকোনো খাবার খেতে পারেন। তবে অবশ্যই মনে রাখবেন ভারী খাবার খাওয়ার আগে এবং খাবারের মাঝখানে কখনই পানি খাওয়া ভালো না। এতে করে খাবার মাঝখানে পানি ক্ষুধাটাকে নিবারণ করে। ফলে ভারী খাবার খাওয়ার রুচি থাকে না।

৩. ঘন ঘন খান :
আপনি যদি ওজন বাড়াতে চান তাহলে দিনে ৫ থেকে ৭ বার পরিমিত পরিমাণে খাবার খান। অামরা সচরাচর ৩ বার খেয়ে থাকি। আপনি দিনে ৬ বার খান কিন্তু পরিমাণটি নির্দিষ্ট করে। এতে করে আপনার খেতে কোনো সমস্যা হবে না। কলা, আম ইত্যাদি ফল বেশি পরিমাণে খাবেন। পাশাপাশি অন্যান্য ক্যালরিযুক্ত খাবারও গ্রহণ করুন। মনে রাখবেন আপনি যত পরিমাণে জাঙ্ক ফুড খাবেন আপনার দেহ থেকে তার চেয়েও বেশি পরিমাণে প্রোটিন বেরিয়ে যাবে। তাই ভাজা বাদ দিয়ে বাদাম, পরিমিত মিষ্টি, ঘরে তৈরি নানান খাবার খান।

৪. সঠিক নিয়মে খান :
আপনি খাবার খাচ্ছেন কিন্তু কোনো নিয়ম মেনে খাচ্ছেন না এতে করে আপনার কোনো কাজই হবে না। আপনার ওজন কোনোভাবেই বাড়বে না। আপনি যদি নিয়ম করে খাবার তালিকা তৈরি করে খেয়ে থাকেন তাহলে আপনার ওজন বাড়তে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। দিনের একটি বড় তালিকা তৈরি করুন ও সেটি পালন করুন ঘড়ি ধরে। মোটামুটিভাবে ৪ সপ্তাহের মধ্যে একটি ইতিবাচক ফলাফল পাবেন। ওজন বাড়ে সহায়ক খাবার গুলো রোজ খাবেন ও পর্যাপ্ত ঘুমাবেন।

৫. শারীরিক ব্যায়াম :
অবাক হচ্ছেন? ভাবছনে আপনি রোগা মানুষ আপনার আবার ব্যায়াম কি? তাহলে জেনে রাখুন, কিছু বিশেষ ব্যায়াম শরীরের পেশী তৈরি করে ও ওজন বাড়ায়। তাছাড়া ক্ষুধার উদ্রেকও করে। জিমে যাওয়া শুরু করুন নিয়মিত, ট্রেইনারের কথা মেনে চলুন। চমৎকার শরীর তৈরি হবে।আবার আপনি যদি শুধু ক্যালরিযুক্ত খাবার খেয়েই যান আর কোনো ধরনের ব্যায়াম না করেন তাহলে আপনার শরীরের কিছু অংশে অতিরিক্ত মেদ দেখা দেবে যেমন তলপেটসহ অন্যান্য অংশে কিন্তু আপনার ওজন বাড়াতে খুব একটা সহায়ক ভূমিকা রাখবে না। এজন্য যতটা সম্ভব শারীরিক ব্যায়াম করুন। এতে করে দেহের অতিরিক্ত মেদ নিঃসরণ করে একটা ভালো ওজন পেতে পারেন।

৬. ধূমপান থেকে বিরত থাকুন :
ধূমপান একজন মানুষকে শারীরিকভাবে অসুস্থ করে তোলে। স্বাস্থ্যের ক্ষতিসাধন করে থাকে। এজন্য দেখা গেল যে স্বাস্থ্য বাড়ানোর জন্য আপনি যতটা প্রয়োজন নিয়ম করে খাবার গ্রহণ করলেন কিন্তু পাশাপাশি ধূমপান চালিয়ে গেলেন। এতে করে আপনার কোনো ধরনের ইতিবাচক ফলাফল আসবে না। এর জন্য আপনি যদি ধূমপায়ী হয়ে থাকেন আর ওজন বাড়াতে চান তাহলে আজই ধূমপান ত্যাগ করুন।

সূত্র - প্রিয়.কম 

Please Login to comment and favorite this Health Tip
Next Health Tips: ছোট্ট কিছু পরিবর্তন আপনাকে করে তুলবে সবার চোখে “অসাধারণ”
Previous Health Tips: পিপঁড়া তাড়ানোর ৮টি দারুণ কার্যকরী উপায়

আরও স্বাস্থ্য টিপ

আপনার ঝিমুনি আসার কারণগুলো কী?

আপনার ঝিমুনি আসার কারণগুলো কী?আপনি কী প্রায়ই অলস, ক্লান্ত বা শক্তি কম অনুভব করেন? কেন এমন অনুভব হয়? আপনার এমন অনুভূতির কারণ হতে পারে স্ট্রেস, একঘেয়েমি, সুষম খাদ্যের অভাব বা  ইনসমনিয়া। সাধারণত রাতের ভালো ঘুমই এর প্রতিকার। কিন্তু কিছু ক্ষেত্রে ঝিমুনি আসার  কারণ হতে পারে মারাত্মক কোন... আরও দেখুন

গর্ভাবস্থায় শিশুর নড়াচড়ার বিষয়ে জানুন

প্রতিটা হবু মা তাঁর গর্ভের সন্তানের অস্তিত্বের অনুভূতি টের পান যখন গর্ভস্থ শিশু পা ছোঁড়াছুড়ি করে। শিশুর এই নড়াচড়াই তাঁর বৃদ্ধি ঠিক মত হচ্ছে এটার ইঙ্গিত বহন করে। যদিও শিশু মায়ের গর্ভে থাকাকালীন নড়াচড়া এবং  লাথি মারা ছাড়াও অন্যান্য কাজও করে থাকে যেমন – ঘুমানো, খেলা করা, হামি দেয়া,... আরও দেখুন

মধু-দারুচিনির মিশ্রনের উপকারিতা জানেন তো?

আমাদের দৈনিক জীবনের গুরুত্বপূর্ণ দুটি উপাদান হলো মধু এবং দারুচিনি। রান্নার মশলা হিসেবে দারুচিনি বেশ পরিচিত। আর মধুও আপন গুণে গুণান্বিত। ওষধ হিসেবে এই দুটি প্রাচীনকাল থেকে ব্যবহার হয়ে আসছে। কোলেস্টোরল বাড়ছে নিয়ন্ত্রণহীন ভাবে? কিংবা বাতের ব্যথায় কষ্ট পাচ্ছেন? এই সব সমস্যার সমাধান পাবেন... আরও দেখুন

রোজকার যে অভ্যাসগুলো আপনার হাঁটু ব্যথা বাড়িয়েই চলেছে!

দিনের পর দিন আপনার হাটুর ব্যথা কি বেড়েই যাচ্ছে? এর পেছনে অনেক কারণ থাকতে পারে কিন্তু বেশ কিছু সাধারণ কারণ নিয়ে আজ আমরা কথা বলবো। এগুলোর মধ্যে কোন একটা যদি আপনি করে থাকেন,তবে সময় এসেছে সেসব বন্ধ করার। চলুন জেনে আসা যাক কারণগুলো- ভারী ব্যাগ বহন করা ব্রিটিশ কায়রোপ্র্যাকটিক এসোসিয়েশনের মতে,... আরও দেখুন

খাওয়ার পরিমাণ কমান ৮টি কৌশলে

অনেক দিন ধরে ভাবছেন ডায়েট শুরু করবেন, কিন্তু পারছেন না। আবার নানান ঝামেলা করে শুরু করলেন ডায়েট। কিন্তু খাবার দেখলে ভুলে যাচ্ছেন ডায়েটের কথা। যারা খেতে পছন্দ করে, তাদের জন্য খাবার কম খাওয়াটা বেশ কষ্টকর। এধরনের মানুষের খাবারের প্রতি একধরনের আসক্তি কাজ করে। যার কারণে খাবার খাওয়া ছাড়তে পারে না... আরও দেখুন

হৃদরোগের ঝুঁকি কমানোর সবচেয়ে ভালো একটি উপায়

আপনি কী দীর্ঘ সময় বসে কাটান? তাহলে আপনার সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। কারণ দীর্ঘক্ষণ বসে কাটালে কার্ডিওভাস্কুলার ডিজিজ হওয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। গবেষকদের মতে প্রতি আধা ঘন্টা পর পর ২ মিনিটের জন্য হেঁটে আসলে ফ্যাটি এসিডের মাত্রা কমে। ফ্যাটি এসিড ধমনীতে বাঁধার সৃষ্টি করে।   গবেষণায় জানা গেছে... আরও দেখুন

healthprior21 (one stop 'Portal Hospital')